ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ‘বিশ্ব অটিজম সচেতনতা দিবস’ উদযাপিত

 

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কমিউনিকেশন ডিজঅর্ডারস বিভাগের উদ্যোগে গত ২ এপ্রিল ২০২১ শুক্রবার ‘বিশ্ব অটিজম সচেতনতা দিবস’ পালিত হয়েছে। করোনা মহামারির বিবেচনায় বিকল্প অনলাইন ওয়েবিনার এর মাধ্যমে আলোচনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

অনুষ্ঠানে সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারপার্সন নাছিমা বেগম, এনডিসি, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রো-উপাচার্য (শিক্ষা) অধ্যাপক ড. এ এস এম মাকসুদ কামাল, নিউরো ডেভেলপমেন্টাল প্রতিবন্ধী সুরক্ষা ট্রাস্টের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ড. মোঃ আনোয়ার উল্লাহ্, এফসিএমএ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কমিউনিকেশন ডিজঅর্ডারস বিভাগের অধ্যাপক ড. হাকিম আরিফ ও সহকারী অধ্যাপক সোনিয়া ইসলাম, জাতীয় মানসিক স্বাস্থ্য ইনস্টিটিউটের সহযোগী অধ্যাপক ডাঃ হেলাল উদ্দিন আহমেদ এবং তরী ফাউন্ডেশন ও এসসিজির পরিচালক ড. মারুফা হোসেন। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন কমিউনিকেশন ডিজঅর্ডারস বিভাগের বিভিন্ন বর্ষের শিক্ষার্থীরা। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কমিউনিকেশন ডিজঅর্ডারস বিভাগের চেয়ারপার্সন তাওহিদা জাহান।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রো-উপাচার্য (শিক্ষা) অধ্যাপক ড. এ এস এম মাকসুদ কামাল বলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কমিউনিকেশন ডিজঅর্ডারস বিভাগ প্রতিষ্ঠার পর থেকেই সমাজের ভাষিক যোগাযোগে পিছিয়ে পড়া মানুষদের জন্য কাজ করে যাচ্ছে। তিনি বলেন, উন্নত দেশের তুলনায় দক্ষিণ-এশিয়ার দেশগুলোতে প্রতিবন্ধীদের প্রয়োজনীয় সেবা প্রদানের সুযোগ কম। অটিজম বৈশিষ্ট্যসম্পন্ন এ সকল মানুষদের হেয় প্রতিপন্ন না করে রাষ্ট্র, সমাজ ও পরিবারের দায়িত্ব হলো তাদের মানবিক সেবা প্রদান সুনিশ্চিত করা।

জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারপার্সন নাছিমা বেগম সমাজের কুসংস্কারের কথা তুলে ধরে বলেন, অটিজমে আক্রান্ত শিশুদের অনেক মা-বাবাই তাদের সন্তানের অবস্থাটি লুকিয়ে রাখেন, তারা ভাবেন তাদের কোন কৃতকর্মের ফল তাদের সন্তান ভোগ করছে, কিন্তু বিষয়টি কখনই এমন নয়। নিজের অটিজমে আক্রান্ত সন্তানের উদাহরণ দিয়ে তিনি বলেন, আমাদের সমাজের এসব গোড়ামি ভেঙে অটিজম সংক্রান্ত সঠিক তথ্য সব জায়গায় ছড়িয়ে দিয়ে এসব বিশেষ শিশুদের ভেতরকার সুপ্ত প্রতিভাকে জাগিয়ে তুলে তাদেরকে সমাজের মূলধারায় ফিরিয়ে আনতে হবে। 

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কমিউনিকেশন ডিজঅর্ডারস বিভাগের চেয়ারপার্সন তাওহিদা জাহান বলেন, অটিজম বিষয়ে বৈশ্বিক সচেতনতা ছড়িয়ে পড়ার একটি উপলক্ষ হিসেবে অটিজম সচেতনতা দিবসটি অধিকতর গুরুত্বের দাবিদার। এ দিবস উদযাপনের মাধ্যমে কোভিড-১৯ মহামারীর সময়ে অটিজম আছে এমন শিশু ও মানুষদের শারীরিক ও মানসিক স্বাস্থ্য সুরক্ষা নিশ্চিত করা, ভাষিক যোগাযোগের বিশেষ স্পিচ থেরাপি সেবা প্রদানের টেলিথেরাপি সেবার সকলের জন্য সহজলভ্য করাসহ সার্বিক চিকিৎসা নিরাপত্তার বিষয়ে মানুষের সচেতনতা ও জ্ঞান ছড়িয়ে দেয়ার জন্য কমিউনিকেশন ডিজঅর্ডারস বিভাগ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এ উদ্যোগ।

২০০৭ সাল থেকে অটিজম সচেতনতা দিবস পালন শুরু হলে জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদ কর্তৃক ২রা এপ্রিলকে বিশ্ব অটিজম সচেতনতা দিবস হিসেবে নির্ধারণ করা হয়। তারই ধারাবাহিকতায় এবারের প্রতিপাদ্য হচ্ছে, “Inclusion in the Workplace: Challenges and Opportunities in a Post-Pandemic World” অর্থাৎ, কর্মক্ষেত্রে একীভূতকরণ: মহামারী পরবর্তী বিশ্বের বাধা ও সুযোগসমূহ।

------------------------
(মাহমুদ আলম)
পরিচালক 
জনসংযোগ দফতর
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

Photo

 

Latest News
  • ডিজিটালাইজেশনের অগ্রযাত্রায় ঢাবি’র নতুন মাইলফলক বিভিন্ন বর্ষে ভর্তি ও ফরম ফিল-আপ অনলাইনে করা যাবে

    18/06/2021

    Read more...
  • খণ্ডিত ও বিভ্রান্তিকর তথ্যের স্পষ্টীকরণ

    17/06/2021

    Read more...
  • ‘HEAL Bangladesh Foundation Trust Fund’ established at DU

    15/06/2021

    Read more...
  • ঢাবি-এ আইটি বিষয়ক আন্তর্জাতিক ট্রেনিং প্রোগ্রাম শুরু

    15/06/2021

    Read more...
  • ঢাবি-এ ‘বাজেট ২০২১-২২ পর্যালোচনা: প্রত্যাশা ও প্রাপ্তি’ শীর্ষক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত

    14/06/2021

    Read more...
  • ঢাবি অণুজীব বিজ্ঞান বিভাগে মুজিব কর্ণারসহ বিভিন্ন কার্যক্রমের উদ্বোধন

    13/06/2021

    Read more...
  • ঢাবি বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব হলের ছাত্রীদের জন্য মানসিক স্বাস্থ্য সহায়তা

    12/06/2021

    Read more...